কককলম্বাস দিবস বিলুপ্ত হওয়া উচিৎ…

(llbangla.org)

১২ই আক্টোবর কলম্বাস দিবস পালন করা হয়, এই সেই দিন যেদিন ক্রিষ্টুফার কলম্বাস আমেরিকায় এসেছিলেন। আমেরিকায় প্রতিবছর অক্টোবর মাসের দ্বিতীয় সোমবারে পালিত হয়। ইহা অন্যান্য স্থানের মত হ্যামশায়ারে ও ব্যাপক ভাবে পালিত হয়। কলম্বাস দিবস আমাদের মর্মযাতনাকে বাড়িয়ে দেয়। ইহা নিপিড়ণ, নির্যাতন, জাতিগত বিদ্বেষ, সাম্রাজ্যবাদ ও সাদা মানুষের আধিপত্যবাদের কথা মনে করিয়ে দেয়। তাই, কলম্বাস দিবসটি পালনকরা বন্ধ করা প্রয়োজন।

একটি কল্পকথা চালু আছে যে, কলম্বাস একজন জাতীয় বীর। প্রকৃত সত্য হলো যে, সে একটি দুষ্ট প্রকুতির মানুষ মানুষ ছিলো, নিমর্মতা হলো তার চরিত্রের প্রধান বৈশিষ্ঠ্য । সেই ইউরোপীয় গনহত্যার নায়ক ও আমেরিকা বিজয়ী । মানবজাতির ইতিহাসে কলম্বাস হলো দুনিয়ার সবচেয়ে বড় দেশ লুন্ঠন কারী ও মহা চোর। ইউরোপ আস্তএকটি মহাদেশ তার নেতৃত্বেই লুন্ঠনে লিপ্ত হয়েছিল। কলম্বাস আমেরিকার সমগ্র ভূমিকে জবর দখল করার জন্য নির্মম গণ হত্যা শুরু করে, প্রায় ১০ মিলিয়ন আদিবাসী  মানুষকে হত্যা করে। সেই সময় যাদেরকে মারতে বা হত্যা করতে পারেনি তাদেরকে দাসে পরিণত করে এবং নিষ্ঠুর ভাবে তাদেরকে নিয়ন্ত্রণ করে। কলম্বাস প্রথম দিকেই আটলানন্টিক মহাসাগরীয় অঞ্চলে দাস ব্যবসা শুরু করে।  মাঝ পথেই মিলিয়ন মিলিয়ন আফ্রিকান নিরপরাধ মানুষকে খুন করে। অগণিত আফ্রিকান ও কালো মানুষকে দাসে পরিনত করে এই পাষন্ড। সেই সন্ত্রাসীই পুঁজিবাদ ও সাম্রাজবাদের ভিত্তিভূমি রচনা করে । কলম্বাস সেই সময়ের কোন সাধারণ লোক ছিলনা । এমনকি তার উত্তরাধিকারীরা ও তার পথ ধরে সামনে এগিয়ে যায় ।

কলম্বাসকে ঘিরে যে সকল মিথ্যাচার চালু আছে তা নিম্নে তুলে ধরা হলো..

-প্রথম কথা হলো, কলম্বাস আমেরিকা আবিস্কারের প্রথম ইউরূপীয় লোক  নয়। আমাদের জানা মতে, দি ভাইকিং , লিফ এরিকসন প্রায় ৫০০ বছর আগে নিউফাঊন্ডল্যান্ডে  একটি নূরগ্রাম স্থাপন করেছিলেন। তাই আমরা লিফের প্রতি সম্মান জানাতে পারি । ভেবে দেখুন, আমেরিকা আবিস্কারের বিষয়টি কত আগ্রাসীভাবে আমাদের সামনে তুলে ধরা হয়েছে।  প্রকৃত সত্য হলো যে, আমেরিকার আদিবাসীরাই উত্তর আমেরিকা আবিস্কার করে প্রায় কলম্বাসের জন্মের ও ১৪,০০০ বছর আগে। অতি আশ্চর্যের বিষয় হলো যে, এখন ডিএনএ টেষ্ট বলছে পলিনেশিয় অধিবাসীদের ক্যানন নৌকা গুলো আটলান্টিক পাড়ি দিয়ে সাউথ আমেরিকায় বাইকিং এর বহু আগেই নোঙ্গর করেছিল।

– দ্বিতীয়ত কলম্বাস কোন ভাবেই এই আবিস্কারের নায়ক ছিলনা। সে ১৪৯২ সালের ১২ই অক্টোবর যখন বাহামার বালুময় সমূদ্র সৈকতে নামে তখন দেখতে পায় সেখানে লুসিয়ানা, টেইনুস ও আরাওয়াকাস লোকদের বাস, যারা অত্যন্ত শান্তিপ্রিয়, বন্ধুভাবাপন্ন ও অতিথি প্রিয়। কলম্বাস তার দিনলিপিতে নিজেই লিখেছে, তারা সুস্বাস্থের অধিকারী, চৌকস ও দয়ালু প্রকৃতির লোক। সে উল্লেখ করেছে যে, অত্যন্ত ভদ্র ব্যাবহারকারী আরাওয়াকসগণ আতিথীয়তার জন্য বিখ্যাত, তার ভাষ্য হলো, আমরা যা চেয়েছি উরা সবকিছুই দিয়ে দিয়েছে, কিছুতেই তারা না করেনি। কলম্বাস বলছে, আরাওয়াকসদের হাতে কোন অস্ত্র ছিলনা । তাদের সমাজে কোন অপরাধ, কারাগার বা কোন প্রকার বন্ধি ছিলনা। তারা ছিল খুবই হ্রদয়বান মানুষ । কলম্বাস লিখেছ, আরাওয়াকসগণ ঘন্টার পর ঘন্টা পরিশ্রম করে তাদের জাহাজ সান্তা মারিয়াকে হেফাজত করেছে । সেই আদিবাসী লোকেরা খুবই সৎ প্রকৃতির মানুষ জাহাজ থেকে একটি দ্রব্য ও খোয়া যায়নি বা চুরি হয় নি।

কলম্বাস দ্বিপবাসীদের কঠোর পরিশ্রম ও তাদের কাজ কর্ম ও সততা দেখে খুবই সুপ্রসন্ন হয়েছিল। তাই তাদেরকে দ্রুত সময়ের মধ্যেই বন্ধী করে স্পেনে দাস হিসাবে সোনার খনিতে কাজ করার জন্য । আর এর মাত্র দুই বছরের মধ্যেই সেই দ্বিপের আদিবাসী ১২৫০০০ জন (যা খুন করা জন সংখ্যার প্রায় অর্ধেক) মানুষ মারা যায় । আমি যদি কোন স্বদেশী আমেরিকান হতাম তবে ১২ই অক্টোবর ১৪৯২, কে আমারে ক্যালেন্ডোরে কালো দিবস হিসাবে দাগ দিয়ে রাখতাম।

অত্যন্ত দুঃখের বিষয় হলো যে, নরকের কিট  কলম্বাস আদিবাসী মেয়েদেরেকে যৌনদাসী হিসাবে বিক্রি করে দেয়। তার গৌত্রের কাছে ৯ থেকে দশ বছরের  মেয়েরা বেশী লোভনীয় ছিল। ১৫০০ সালে, কলম্বাস তার ডাইরীতে এ বিষয়ে লিখেছিল যে, শত শত মহিলাকে ফার্মে চালান করা হয়েছিল, আর সে সময়ে তার চহিদা ও ছিল বেশ, নারী ব্যবসায়ী ডিলাররা ৯ থেকে ১০ বছরের মেয়েদেরেকেই বেশী করে চাইছিল।

সে শান্তি প্রিয় আদিবাসিদেরকে স্বর্ণ খনিতে কাজ করতে বাধ্য করেছিল এবং নিমর্ম নিযাতনের মাধ্যমে তাদেরকে মৃত্যু মুখে টেলে দিয়েছিল।  যদি কোন ইন্ডিয়ান কর্মী কলম্বাসের নির্ধারিত পরিমান সোনা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আহরণ করে না দিতে পারত তবে তবে তার হাত কেটে ফেলত এবং হাত গুলো গলায় বেঁেধ অন্যান্য শ্রমিকদেরকে এই বার্তা দিত যে, তুমি টার্গেট পুরন করতে না পারলে তোমার ও এই পরিণতি হবে। এই নির্মম, অসহ্য, ও অমানবিক দাসত্বেও বোঝা বইতে নাা পেরে শান্তশিষ্ট দ্বিপবাসীদের  অনেকেই আত্মহননের পথ বেচেঁ নেয়। খ্রীষ্টান ধর্মের ক্যাথলিক স¤প্রদায়ের লোকদের জন্য কোন প্রকার দাস রাখা নিষিদ্ধ ছিল। সে খুব সহজেই সমাধান করে দেয়, কলম্বাস হিসপানিউলার  আদিবাসীদেরকে ব্যাপটাইজ করা থেকে বিরত রেখে। তার যুক্তি ছিল বিধর্মীদেরকে দাস বানালে কোন পাপ নেই।

নরঘাতক কলম্বাস তার দ্বিতীয় অভিযানের সময় সঙ্গে কামান ও আক্রমনকারী কুকুর নিয়ে এসেছিল আমেরিকায় । যদি কোন আদিবাসী দাসত্বেও বিরুদ্ধে কিছু বলত তবে তার হাত পায়ের সমস্ত নক, কান ও নাক কেটে ফেলত সেই নর পিচাশ । যদি কোন দাস পালাবার চেষ্ঠা করত তবে কলম্বাস তাদেরকে জিবন্ত পুড়িয়ে মারত। সে কুকুরদেরেকে পলায়নরত দাসদেও পিছনে লেলিয়েদিত কুকুর গুলো তাদেরকে কামড়ে কামড়ে তাদের হাত পা ছিঁেড় ফেলত। দাসেরা যত সময় জীবন্ত থাকত তত সময় কুকুর গুলোর কামড় থেকে ওরা রেহাই পেত না । স্পেনির্য়াড কুবুরদের খাবারের জন্য যদি মাংশের অভাব হত তবে কলম্বাস আরাওর্য়কস স¤প্রদায়ের শিশুদেরকে জবাই করে কুকুরের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করত।

কলম্বাস যে নিষ্ঠুরতা ও নিমর্মতার পরিচয় দিয়েছিল তা অবর্ণনীয়, সেই সময়কার কোন মানুষের জনই তা মেনে নেয়া সম্ভব ছিলনা । তাই সেই সময়কার গর্ভনর ফ্রান্সিস ডি বুভাদালিয়া  কলম্বাসকে তার দুই ভাই সহ গ্রেফতার করে, এবং আরাওর্য়াকস স¤প্রদায়ের মানুষের সাথে নির্মম অত্যাচারের অপরাধে  তাদের পায়ে শিকল বেধেঁ স্পেনে পাটিয়ে দেন।  কিন্তু সেই সময়কার রাজা ও রাণী বিপুল পরিমান সোনা ঘুষ নিয়ে তাদের সিন্দুক পুর্ণ করে এবং সেই ঘৃণ্য অপরাধীদেরকে মুক্ত করে দেয়।

কলম্বাসের একজন সহচর ছিল বার্থুলুমি ডি লাস ক্যাসাস, তিনি আদিবাসী মানুষের সাথে কলম্বাসের নির্মম ও নিষ্ঠুর  কাযক্রমের জন্য অত্যন্ত মর্মাহত হয়ে কলম্বাসের সঙ্গ ত্যাগ করেছিলেন। পরে তিনি কলম্বাসের সাথে কোন প্রকার সম্পর্ক রাখেন নি এবং নিজেকে একজন ক্যাথলিক ধার্মিক হিসাবে গড়ে তুলেন। তিনি বর্ণণা করেছেন কলম্বাসের নেতেৃত্বে পলায়নপর শিশুদেরকে কিভাবে স্পেনির্য়ডরা তাদের হাত পা কর্তন করেছে । বার্থুলুমি ডি লাস ক্যাসাস এর বর্ননা করেন যে, কলম্বাস মানুষকে তলোয়ার দিয়ে টুকরো টুকরো করেছে, এক কুপেঁ একটি মানুষকে দু ভাগ কার ছিল তার সখের বিষয় । তিনি বলেন সে মানুষকে উত্তপ্ত পানিতে ফেলে সুপে পরিণত করত।   বার্থুলুমি ডি লাস ক্যাসাস বলেন আমি নিজের চোখে দেখেছি, স্পেনের সৈন্যরা একদিনে প্রায় তিন হাজার মানুষকে কেটে টুকরো টুকরো করছে, মথা কেটে নিচ্ছে মানুষের  ও নারীদেরকে প্রকাশ্যে ধর্ষন করছে এবং  পরে তাদেরকে ও কেটে ফেলা হয়েছে। এইরূপ অমানবিকতা, বর্বরতার মত জঘন্য অপরাধ আর কোন যুগে হয়েছিল কি না তা আমাদেরদের জানা নেই। বার্থুলুমি ডি লাস ক্যাসাস লিখেছেন, কলম্বাসের নিষ্ঠুর নিমর্মতার ঘটনা বর্ণনা করা সম্ভব নয় আমি যখন এসব লিখছি তখন ও আমার গা শিউরে উঠছে। আমি কাঁপছি।

.. এ বিষয়ক বিশেষজ্ঞগণ সাধারণভাবে একমত যে, ১৪৯২ সালের আগে, হিসপানিওয়ালা দ্বিপের  লোক সংখ্যা তিন  মিলিয়নের অধিক ছিল। স্পেনের লোকদের আগমনের মাত্র বিশ বছরের মধ্যে সেই দ্বিপের লোক সংখ্যা কমে এসে দাঁড়িয়েছে মাত্র ষাট হাজারে। আর মাত্র ৫০ বছরের মধ্যে সেই দ্বিপের আদিবাসী একটি লোকের ও অস্থিত্ব খুঁজে পাওয়া যায় না ।

১৫১৬ সালে, স্পেনিশ ঐতিহাসিক পিটার র্মাটেয়ার লিখেছেন,.. একটি জাহাজ  কম্পাস, নক্সা ও কোন প্রকার নির্দেশনা  ছাড়াই কেবল মাত্র জাহজ থেকে ছুড়ে ফেলা মৃত ইনিডয়ান মানুষের লাশ বহর অনুসরন করে বাহামা থেকে হিসপানিওয়ালা পর্যন্ত পৌঁেছছিল।

বার্থুলুমি ডি লাস ক্যাসাস লিখেছেন, ক্রিস্টোফার কলম্বাস মূলতঃ দাস ব্যবসা থেকেই তার পুজিঁর সিংহভাগ অর্জন করেছিল।

সত্যিকার ইতিহাস হলো, কলম্বাসই ছিল আমেরিকার সর্বপ্রথম দাস ব্যবসায়ী । যখন স্থানীয় আদিবাসী দাসদের  মৃত্যু হলো তখন তারা কালো দাসদের আমদানী করলো। কলম্বাসের ছেলেই সর্বপ্রথম ১৫০৫ সালে আফ্রিকা থেকে দাস আমদানীর ব্যবসা শুরু করে ।
আপনি হয়ত অবাক হচ্ছেন যে, আমরা স্কুলে তো এইরূপ ইতিহাস শিখিনি । একথা আমার ও । এইরূপ বিকৃত ইতিহাস আমেরিকা সহ সারা পৃথিবীতে কেন প্রচারিত হলো? কলম্বাসের দিন লিপিতে তো এই সব কথা নিজেই লিখে রেখেছিল এছাড়া তার সহযোগী বার্থুলুমি ডি লাস ক্যাসাস এবং ম্যাকলি ডি ক্যুনীউ। কেহ যদি অবিশ্বাস করেন তবে গুগলে গিয়ে কেবলমাত্র কলম্বাস, সেক্স স্লেইভ এন্ড গৌল্ডমাইন শব্দটি লিখে র্সাচ দিয়ে দেখুন । কলম্বাসের সময়টি মানব ইতিহাসের একটি কলো অধ্যায় হয়ে আছে।

লিডিং লাইট ও দুনিয়ার ভালো মানুষদেও প্রতি আমাদের আহবান আপনি পৃথিবীর যেখানেই থাকুন কলম্বাস দিবসের বিরুধিতা করুন তার কিছুই সমর্থন করবেন না। একেএম শিহাব

Advertisements