ভেনিজুয়েলার নেতা জানিয়েছেন সামরিক অভ্যুত্থান চেষ্টা কারী জেনারেলদেরকে গ্রেফতার করা হয়েছে । ৫ ই নভেম্বর, ২০১৪

(সাম্রাজ্যবাদী চক্র ভেনিজুয়েলার সামরিক শক্তিকে সেভেজের জাতিয়তাবাদি সরকারের বিরুদ্বে কাজে লাগাতে চায়। সি আই এ ২০০২ সালে সেভেজের সরকারকে আরো একবার ফেলে দিতে চাইছিলো। এটা এখন আর কোন গোপন বিষয় নয় যে আমেরিকা একটি বড় ধরনের গন্ডগোল পাকিয়ে বর্তমান সরকারকে বিতারন করতে চায়। আমেরিকা এই দেশের বিরোধী দলের প্রতি প্রতিনিয়ত সমর্থন দিয়েই চলেছে।
বর্তমানে তাঁরা বিপ্লবেরই কেবল বিরুধিতা করছে না – ওয়াশিংটনের সমর্থক চক্রকে তাঁরা ক্ষমতায় আনতে চাইছে – এন পি)
ভেনিজুয়েলার নেতা জানিয়েছেন তাঁরা সামরিক অভ্যত্থানের চেষ্টাকারী  জেনারেলদেরকে আটক করেছেন।
ক্যারাকাস, ভেনিজুয়েলা (এপি) – ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকুলাস মাদেরু জানিয়েছেন, তিন জন গেনারেল সহ বেশ কয়েক জন ব্যাক্তি তাঁর বিরুদ্বে সামারিক অভ্যুথহান করার চক্রান্ত করছিল।
মাদেরু ঘোষণা করছেন, তাঁর সমাজতান্ত্রিক সরকার তিন জন বিমান বাহিনীর জেনারেলকে সরকারের ও দেশের বিরুদ্বে চক্রান্ত করার অভিযোগে সামরিক ট্রাইব্যনালের সামনে হাজির করা হবে।
তিনি জানিয়েছেন, কয়েক জন উচ্চ পদস্থ সামরিক কর্ম কর্তা বিরুধীদের সাথে ষড়যন্ত্র করছিলো, তবে এই বিষয়ে  তরুন অফিসাররা সচেতন থাকায় তাঁরা ব্যার্থ হয়েছে।
তিনি এমন এক সময়ে এই ঘোষনা দিলেন যখন দক্ষিন আমেরিকার বিদেশ মন্ত্রীগন তাঁর সাথে বৈঠক করছিলেন –  দেশের সরকার ও বিরোধীদের মাঝে একটি মিমাংশায় পৌছানোর জন্য।
২০০২ সালে থেকেই বিশেষ করে সেভেজকে ক্ষমতাচ্যুত করার চেষ্টার পর থেকেই মাদেরু এই অভিযোগ করে আসছিলেন। তবে তিনি এ সম্পর্কে বিশেষ কিছুই কখন ই প্রকাশ করেন নি বা কোন প্রমান ও হাজির করেন নি। এমন কি এর আগে কাঊকে তেমন গ্রেফতার ও করা হয় নি।
 সম্প্রতি, মাদেরু জনগণের প্রতি সাধারণ ভাবে আহবান জানিয়েছেন যে, তাঁরা যেন আমেরিকার বিরুদ্বে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। তাঁরা যেন সামরিক অভ্যুত্থান ও অর্থনৈতিক যুদ্বে শরিক হন। এই প্রতিবাদ ও আন্দোলনের কারনে দেশে অভাব, মুদ্রাস্ফিতি, এবং নানা প্রকার অপরাধ বেড়ে গেছে। এই মধ্যে কয়েক ডজন মানুষ মারা গেছে।
মাদেরু প্রশাসন কর্তৃক কয়েকজনকে গ্রেফতারের কারনে সামরিক প্রশাসন যে দমে যাবে, তা আমাদের মনে হয়না – এটা নির্ভর করছে রাজনৈতিক ভাবে চলমান পরিস্থিতিকে কিভাবে পরিচলনা করা হবে।
ল্যাটিন আমেরিকা সম্পর্কিত বিশেষজ্ঞ ডেভীড স্মাইল্ড বলেন,  জনগণের মাঝে ঐক্য সৃষ্টি করার জন্য সরকার হয়ত প্রচার করবেন যে, তাঁরা শত্রুকে গ্রেফতার করেছেন।
“ আপনি যখন বলবেন যে, চক্রান্ত চলছে তখন সৈনিকরা ও বুঝবেন এখন বিদ্রোহ করার সময় নয়” – বললেন স্মাইল।
 বিরোধী দল যে একটি নোংরা খেলায় জড়িত তা ও জন গন মনে করতে পারেন- যা সরকারের জন্য অনুকূল।
মাদেরু সৈনিকদের অনুগত্য ধরে রাখার জন্য খুবই তৎপর রয়েছেন । তিনি তাঁর প্রসআশনের একটি বিরাট অংশ সেনাবাহিনীর লোক দিয়ে পুর্ন করেছেন। তিনি এমন কি টেলিভিশনে ও সৈনিক পাঠিয়েছেন। অন্য দিকে মূদ্রাস্ফিতি বেড়ে দশের ঘর ছাড়িয়েছে।
স্মাইড পরামর্শ দিয়ে বলেছেন, জেনারেলরা এখন হয়ত আর সকল শকতি নিয়োজিত করে অভ্যত্থান করবেন না । এখন তাঁরা চেষ্টা করবেন একটি ক্ষদ্র দলের মাধ্যমে অভ্যুত্থান করতে এবং সরকারকে হঠাতে ।
যদি তাই হয় তবে মাদেরু কি করবেন ?  সামরিক অভ্যুত্থান ঠেকাতে  মাদেরুর পক্ষে – ছাত্ররা রাস্তার দখল নিতে পারে। বললেন – স্মাইল। একে এম শিহাব

Advertisements